রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

গোলাপি বলেও দিশেহারা বাংলাদেশ



ae4f1de2a9f81d5aa4e212166468fd5a-5dd7b996ab5a3

স্পোর্টস ডেস্ক:

কলকাতায় দ্বিতীয় টেস্টে ভারতের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করছে বাংলাদেশ। ৩০.৩ ওভারে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ১০৬ রান তাদের।

লিটন দাস আহত হয়ে মাঠ ছাড়লে শেষ হয় প্রথম সেশন। ৬ উইকেটে ৭৩ রানে লাঞ্চ বিরতিতে যায় বাংলাদেশ। দ্বিতীয় সেশনে নাঈম হাসানের সঙ্গে ক্রিজে নামেন এবাদত হোসেন। ৭ বলে মাত্র ১ রানে ইশান্ত শর্মার কাছে বোল্ড হন তিনি। এরপর আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী লিটনের বদলি খেলোয়াড় নামায় সফরকারীরা, ক্রিজে আসেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ক্রিজে বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি তিনিও। ১৩ বলে দুটি চারে ৮ রান করে চেতেশ্বর পূজারার ক্যাচ হন মিরাজ। তাকে নিজের চতুর্থ শিকার বানান ইশান্ত। ডানহাতি এই পেসার তার পরের ওভারে নাঈমকে ফেরান ১৯ রানে।

দুর্দশার প্রথম সেশন

প্রথম সেশন ভালো যায়নি বাংলাদেশের। ৬ ব্যাটসম্যান ফিরে যান সাজঘরে। ক্রিজে থিতু হওয়া লিটন দাসও লাঞ্চের ঠিক আগে রিটায়ার্ড হার্ট হন। ২১তম ওভারে মোহাম্মদ সামির বলে কপালে আঘাত পান তিনি। ফিজিওর সঙ্গে কথা বলে আবার ব্যাট করতে নেমে চার মারেন তিনি। তবে মাথায় অস্বস্তিবোধ করায় পরের ওভারে আবার ফিজিওকে ডাক দেন লিটন। শেষ পর্যন্ত রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি ২৪ রানে। ২৭ বল খেলে ৫টি চার মারেন লিটন।

গোলাপি বলে দিশেহারা বাংলাদেশ

ভারতের পেসে দিশেহারা বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। টপ অর্ডারে তাদের ভরাডুবির মধ্যে কিছুটা স্বস্তিতে রেখেছিলেন সাদমান ইসলাম। কিন্তু এই ওপেনারকেও ফিরতে হয়। উমেশ যাদবের ষষ্ঠ ওভারে পেছনে ঋদ্ধিমান সাহার গ্লাভসবন্দী হন সাদমান। ৫২ বলে ৫ চারে ২৯ রান করেন তিনি। মাত্র ৩৮ রানে ৫ ‍উইকেট হারায় সফরকারীরা।

মাহমুদউল্লাহও বিপর্যয়ের শিকার হন দলীয় ৬০ রানে। ইশান্ত শর্মার বল তার ব্যাটে লেগে ঋদ্ধিমানের গ্লাভসে জায়গা করে নেয়। ২১ বলে ৬ রান করেন মাহমুদউল্লাহ।

মুমিনুল-মিঠুনের পর ‘ডাক’ মারলেন মুশফিকও

গোলাপি বলে প্রথম ম্যাচেই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের দুর্দশার চিত্র ফুটে উঠেছে। দুই ওভারে তিন ব্যাটসম্যান ফিরে যান ডাক মেরে। মুমিনুল হক ও মোহাম্মদ মিঠুনের পর রানের খাতা খুলতে পারেননি মুশফিকুর রহিম। মাত্র ৪ বল খেলে মোহাম্মদ সামির ওভারে বোল্ড হন অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান।

উমেশের জোড়া আঘাতে কাঁপলো বাংলাদেশ

১৫ রানে উদ্বোধনী জুটি ভাঙার পর উমেশ যাদবের তোপের মুখে বাংলাদেশ। ১১তম ওভারে তিন বলের ব্যবধানে আরও দুই উইকেট হারায় সফরকারীরা। মাত্র ৭ বল খেলে রানের খাতা না খুলে স্লিপে রোহিত শর্মার ক্যাচ হন মুমিনুল হক। অধিনায়ক ফেরার দুই বল পর মোহাম্মদ মিঠুন হন বোল্ড। তিনিও আউট হন কোনও রান না করে।

সতর্ক শুরুর পর ইমরুলের বিদায়

সপ্তম ওভারের প্রথম বলে ইমরুল কায়েসের বিরুদ্ধে কট বিহাইন্ডের আবেদন করেন ইশান্ত শর্মা, আউট দেন আম্পায়ার। তবে রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান বাংলাদেশি ওপেনার। দুই বল পর আবারও ইশান্তের জোরালো আবেদন, এবার এলবিডাব্লিউর। তাতেও আম্পায়ার আঙুল তোলেন, এবার আর রিভিউ নিয়ে ক্রিজে থাকতে পারেননি ইমরুল। ১৫ বলে ৪ রান করে আউট হন তিনি।

সাদমান-ইমরুলের সতর্ক ব্যাটিং

গোলাপি বলে সাদমান ইসলাম ও ইমরুল কায়েসের উদ্বোধনী জুটি সতর্ক থেকে খেলেছে। বেশ ধীরস্থির ব্যাটিংয়ে ইশান্ত শর্মা ও উমেশ যাদবের পেস মোকাবিলা করে তারা দুজন।

দিবা-রাত্রির টেস্টে টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্টে মুখোমুখি হয়েছে ভারত ও বাংলাদেশ। কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে সাজসাজ রব। এই ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিং নিয়েছে সফরকারী বাংলাদেশ। একাদশে দুটি পরিবর্তন এনেছে তারা। মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম বাদ পড়েছেন, ঢুকেছেন নাঈম হাসান ও আল আমিন হোসেন। স্বাগতিকরা ইন্দোর টেস্টের একাদশ নিয়ে নামছে।

এই ম্যাচটি ঘিরে পুরো কলকাতা গোলাপি রঙের আভায় আলোকিত। এমন রোমাঞ্চকর ম্যাচটি দেখার অপেক্ষায় ভারত ও বাংলাদেশের কোটি কোটি ক্রিকেটপ্রেমী। বাংলাদেশ সময় দুপুর দেড়টায় ম্যাচটি শুরু হয়েছে। সরাসরি সম্প্রচার করছে স্টার স্পোর্টস ও গাজী টিভি।

২০১৫ সালে অ্যাডিলেডে প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মাঝে। চার বছর পর এক নম্বর টেস্ট দল ভারত এবং নয় নম্বর টেস্ট খেলুড়ে দল হিসেবে দিন-রাতের টেস্ট খেলতে নামছে বাংলাদেশ। দুই দলের অধিনায়কই ম্যাচটি নিয়ে রোমাঞ্চিত। তাদের প্রত্যাশা গোলাপি বলের টেস্টের মাধ্যমে দর্শক মাঠমুখী হবে।

দিবা-রাত্রির এই টেস্ট ম্যাচকে ঘিরে চমকপ্রদ অনেক কিছুই থাকছে ইডেনে। ঘণ্টা বাজিয়ে ঐতিহাসিক গোলাপি বলের টেস্টের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টসের পর দুই দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচিতি পর্ব সারেন তারা। এসময় তাদের পাশে ছিলেন বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এবং শচীন টেন্ডুলকার। সবমিলিয়ে টেস্টের প্রথম দিনে নানা আকর্ষণ থাকছে।

উপমহাদেশের প্রথম গোলাপি বলের টেস্ট নিয়ে কলকাতাবাসী এতোই রোমাঞ্চিত যে এক সপ্তাহ আগে টেস্টের চারদিনের সমস্ত টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। টেস্ট ক্রিকেটে গ্যালারি ভড়া দর্শকদের সামনে খেলার খুব একটা সুযোগ হয় না ক্রিকেটারদের। কিন্তু ইডেনে গোলাপি বলের টেস্টে সেই সুযোগ পাচ্ছে বিরাট কোহলি ও মুমিনুল হকের দল।

বাংলাদেশ একাদশ: মুমিনুল হক (অধিনায়ক), সাদমান ইসলাম, ইমরুল কায়েস, মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, লিটন দাস (উইকেটকিপার), নাঈম হাসান, আবু জায়েদ রাহী, আল আমিন হোসেন, এবাদত হোসেন।

ভারত একাদশ: বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), মায়াঙ্ক আগারওয়াল, রোহিত শর্মা, চেতেশ্বর পূজারা, আজিঙ্কা রাহানে, রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, ঋদ্ধিমান সাহা, ইশান্ত শর্মা, উমেশ যাদব, মোহাম্মদ সামি।