শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

বিএনপির কাউন্সিলের প্রস্তুতি চলছে: মির্জা ফখরুল



Bnp-fokhrul

দলের সপ্তম জাতীয় কাউন্সিলের প্রস্ততি চলছে বলে জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘দলের জাতীয় কাউন্সিলের প্রস্তুতি নিচ্ছি  আমরা। এরই মধ্যে আমাদের সাংগঠনিক কার্যক্রম, পুনর্গঠনের কার্যক্রম শুরু হয়েছে জেলা ও অঙ্গ-সংগঠনগুলোর।’

শনিবার (২২ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় বিএনপির  প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।  স্থায়ী কমিটিতে সদ্য পদোন্নতি পাওয়া দুই সদস্য সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে নিয়ে বিএনপি মহাসচিব জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা জানান।

২০১৬ সালের ১৯ মার্চ সর্বশেষ বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল হয়। কেন্দ্রীয় কমিটির মেয়াদ শেষ হয় চলতি বছরের মার্চে।

খালেদা জিয়াকে অগণতান্ত্রিক ও বেআইনিভাবে আটক করে রাখা হয়েছে বলে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘তারও গণতন্ত্রের মুক্তির জন্য আমাদের সংগ্রামকে আরও বেগবান করা হবে। একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের প্রতিনিধি নির্বাচন করতে হবে।’

স্থায়ী কমিটির বাকি তিনটি শূন্য পদ কবে নাগাদ পূরণ হবে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল  বলেন, ‘প্রয়োজনে যথাসময়ে সেগুলো সম্পর্কে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

নবনির্বাচিত স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান বলেন, ‘আমাদের সামনে এখন বড় চ্যালেঞ্জ খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা। আমরা স্থায়ী কমিটিতে এমন কিছু কৌশল নির্ধারণ করবো. যাতে করে দলটা সুসংগঠিত ও ঐক্যবদ্ধ থেকে দেশনেত্রীকে অবিলম্বে মুক্ত করে আনতে পারি। তিনি মুক্ত হলে গণতন্ত্র ফিরে আসবে, দেশে সুশাসন ফিরে আসবে, নির্বাচনের মাধ্যমে আমরা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারবো।’

ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, ‘আমরা একটা ক্রান্তিকালে এই পদে এসেছি। যখন আমাদের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বিনা কারণে জেলে ও  ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দেশের বাইরে। এই পরিস্থিতিতে চেষ্টা করবো আমাদের যে রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা আছে, তা দিয়ে দলকে দেশনেত্রীর মুক্তি ও গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার আন্দোলন শুরুর করতে চেষ্টা করবো।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সারোয়ার, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ প্রমুখ।