বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

রাঙ্গামাটিতে হামলায় নিহত বেড়ে ৭, আহত ২৫



rangamati-140951

অনলাইন ডেস্ক:

রাঙ্গামাটির দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় ভোট কেন্দ্র থেকে নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে ফেরার পথে সন্ত্রাসীদের গুলিতে প্রিজাইডিং কর্মকর্তাসহ ৭ জন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে আনসার ভিডিপির এক নারী সদস্য রয়েছেন। এ ঘটনায় ১১ গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছেন ২৫ জন। নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম জানান, ভোট বর্জনকারী বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলোই এ ঘটনা ঘটিয়েছে।
পুলিশ জানায়, সোমবার (১৮ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ভোটগ্রহণ শেষে ব্যালট বাক্সসহ নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার কংলাক, মাথালং ও বাঘাই হাট নামে ৩টি ভোট কেন্দ্র থেকে উপজেলা সদরে ফিরছিলেন ভোটগ্রহণ কর্মকর্তারা। তারা নয়মাইল এলাকায় পৌঁছালে রাস্তার পাশের পাহাড় থেকে তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে দুর্বৃত্তরা। এতে ঘটনাস্থলেই প্রিজাইডিং অফিসার আবদুল মান্নান, পোলিং অফিসার আমির হোসেন, আনসার ভিডিপির সদস্য আলামিন, বিলকিছ ও মিহির কান্তি দত্ত নিহত হন। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধসহ আহত হন আরো ২৬ জন।

ভোট বর্জনকারী বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলোই এ হামলা চালিয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম। আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর কোনো গাফিলতি ছিলো কি না সে ব্যাপারে খতিয়ে দেখা হবে বলেও জানান তিনি।

নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেন, আরইউ’র সাথে কথা হয়েছে, তিনি জানিয়েছেন, ফেরার পথে ভোট বর্জনকারী বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলোর হামলা করেছে। যারা আহত হয়েছে তাদের জরুরিভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পরে আমরা তদন্ত করবো এর সাথে কে জড়িত। এটা খুবই দঃখজনক ঘটনা।

পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটির ১০ উপজেলার মধ্যে লংগদু ও কাপ্তাই উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায়, সোমবার ৮ উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।