শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

সিলেটের ১৯ উপজেলায় যারা বিজয়ী



sylhet

সিলেট২৪ রিপোর্ট:

৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে সিলেটের ১২ উপজেলার চেয়ারম্যান পদে ৭ জন নৌকার প্রতীকের প্রার্থী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়া চার উপজেলায় আওয়ামী লীগের বাঘা প্রার্থীদের হারিয়ে বিজয় ছিনিয়ে এনেছেন আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীরা। আর স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয় পেয়েছেন একজন।

সাত উপজেলায় নৌকা মার্কা নিয়ে বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন : সিলেট সদর- আশফাক আহমদ (নৌকা); দক্ষিণ সুরমা- আবু জাহিদ (নৌকা); বিশ্বনাথ- মো. নুনু মিয়া (নৌকা); বালাগঞ্জ- মো. মুস্তাকুর রহমান মফুর (নৌকা); জকিগঞ্জ- লোকমান (নৌকা); কানাইঘাট- আব্দুল মুমিন চৌধুরী (নৌকা) ও গোলাপগঞ্জ উপজেলায় ইকবাল আহমদ চৌধুরী (নৌকা)।

এছাড়া আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী হয়ে বিজয়ী হয়েছেন- কোম্পানীগঞ্জে শামীম আহমদ (বিদ্রোহী), জৈন্তাপুরে কামাল আহমদ (বিদ্রোহী), বিয়ানীবাজারে আবুল কাশেম পল্লব (বিদ্রোহী) ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় নুরুল ইসলাম। এই চারজনই আওয়ামী লীগের চার বাঘা প্রার্থীকে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

স্বতন্ত্র থেকে বিজয়ী হয়েছেন গোয়াইনঘাট উপজেলায় শাহ আলম স্বপন। তিনি উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় তাকে দল থেকে বহিস্কার করে বিএনপি।

moulovibazar

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে মৌলভীবাজারের ৭টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। তবে ভোটারের উপস্থিতি ছিল খুবই কম।

মৌলভীবাজারে ৪ বিদ্রোহী, ৩ জন আ.লীগের প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন।

মৌলভীবাজারের ৭টি উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের কামাল হোসেন।

বাকি ৬টি উপজেলার মধ্যে বড়লেখা উপজেলায় আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সোয়েব আহমদ ঘোড়া প্রতীকে ৪৩ হাজার ৪৪ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আ.লীগের রফিকুল ইসলাম সুন্দর পেয়েছেন ২০ হাজার ৫৭৩ ভোট।

জুড়ী উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আ.লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী এম.এ. মহিত ফারুক। তিনি আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ২৫ হাজার ২৮২ ভোট। আ.লীগের গুলশান আরা মিলি নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ৭৭৬ ভোট।

কুলাউড়ায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আ.লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী শফি আহমদ সলমান। তিনি আনারস প্রতীকে ৫৪
হাজার ৭টি ভোট পেয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আ.লীগের আসম কামরুল ইসলাম। তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৪ হাজার ১৩২ ভোট।

রাজনগর উপজেলায় জয়ী হয়েছেন আ.লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহজান খান। তিনি কাপ-পিরিচ প্রতীকে পেয়েছেন ২৭ হাজার ৩৭৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আ.লীগের আছকির খান বিকেল তিনটায় কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

কমলগঞ্জ উপজেলায় আ.লীগের প্রার্থী অধ্যাপক রফিকুর রহমান জয়ী হয়েছেন। তিনি নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৪৯ হাজার ১৫১ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আ.লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমতিয়াজ আহমদ বুলবুল আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ১৯ হাজার ৫৫১ ভোট।

শ্রীমঙ্গল উপজেলায় আ.লীগের প্রার্থী রনধীর কুমার দেব জয়ী হয়েছেন। তিনি নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৫১ হাজার ৪৪০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৪ হাজার ৫৮০ ভোট।

এর আগে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত জেলার ৫১৯টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। মৌলভীবাজার জেলার সাত উপজেলায় মোট ভোটার ১২ লাখ ৯৭ হাজার ৫১১ জন। এর মধ্যে ৬ লাখ ৫২ হাজার ২৬৪ পুরুষ এবং ৬ লাখ ৪৫ হাজার ২৪৭ নারী ভোটার।