সোমবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

চিটাগংয়ের কাছে হারলো ঢাকা



BPL

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে এক বল হাতে রেখে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিরুদ্ধে জয় পেয়েছে চিটাগং ভাইকিংস। সহজ টার্গেটটা কঠিন ম্যাচটি কঠিন করে জিততে হলো চিটাগংকে। আর এখানে ত্রাণকর্তা হন ফ্রাইলিঙ্ক।

১৪০ রানের টার্গেট সামনে নিয়ে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের শুরুতেই উইকেট হারায় চিটাগং। আন্দ্রে রাসেলের বলে শুভাগত হোমের দারুণ এক ক্যাচে ফিরে যান আফগান ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ। এরপর ক্যামেরন ডেলপোর্ট আর তরুণ ইয়াসির আলীর জুটি চিটাগংকে পথেই এনেছিলেন। ৩০ রানে ফেরেন ডেলপোর্ট, সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণিতে বোল্ড হয়ে। আবার ইয়াসিরকে ১৫ রানে ফেরান সাকিব। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম প্রথমে দাসুন শানাকা ও পরে মোসাদ্দেককে সঙ্গে নিয়ে লড়াইটাকে জারি রেখেছিলেন। কিন্তু মুশফিক ২২ রানের বেশি করতে পারেননি। রুবেলের বলে নারাইনের ক্যাচ হন মুশফিক।

মোসাদ্দেক লড়ে গেছেন এক প্রান্ত আঁকড়ে রেখে। মাত্র ১০ বলে ২৫ রান করে ঢাকাকে জয়-বঞ্চিত করেন ফ্রাইলিঙ্ক। শেষ ওভারে চিটাগংয়ের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ১৬ রান। মোহর শেখের প্রথম বলটিতে এক রান নিয়ে ফ্রাইলিংককে স্ট্রাইক দেন সানজামুল ইসলাম। দ্বিতীয় বলেই ছক্কা হাঁকান ফ্রাইলিংক। তৃতীয় বলে দারুণ রানিং বিটুইন দ্য উইকেটে ২ নিয়েই চতুর্থ বলে মারেন আরেক ছক্কা। জয়টা যখন পুরোপুরি চিটাগংয়ের আয়ত্তে ঠিক তখনই শেষটাও করেন বিশাল এক ছক্কায়।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিং করতে নামে ঢাকা। প্রথম বলে রনি তালুকদারকে ফিরিয়ে নিজের প্রত্যাবর্তনকে স্মরণীয় করে রাখেন রবি ফ্রাইলিঙ্ক। সুনীল নারাইনকেও ফিরিয়েছেন এই প্রোটিয়া অলরাউন্ডার। সাকিব আল হাসান ও হেইনো কুন তৃতীয় উইকেটে ২৯ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়েছিলেন। কুনকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙ্গেন আবু জায়েদ। একই ওভারে ফেরান আফগান দারউইশ রাসুলিকে। ক্যামেরন ডেলপোর্টও একই ওভারে সাকিব আল হাসান ও নূরুল হাসান সোহানকে ফিরিয়ে চাপে ফেলেন ঢাকাকে। শেষ পর্যন্ত ঢাকা ৯ উইকেট হারিয়ে করে ১৩৯ রান।