শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

‘ছবি তুলছিস ক্যান’ বলেই সাংবাদিককে মারধর



satkhira journalist

ডেস্ক রিপোর্ট :

এই ছবি তুলছিস ক্যান’ হুংকার ছেড়েই তিনি ঝাঁপিয়ে পড়েন সাংবাদিকের ওপর। কিল, চড়, ঘুষি মেরে কেড়ে নেন সাংবাদিকের মোবাইল ও ক্যামেরা। তারপর ‘একে আরো ভালো করে বানান দে’ বলে অনুগত কয়েকজন শ্রমিককে নির্দেশ দেন সাতক্ষীরা জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি সাইফুল করিম সাবু।জেলা শহরের বাস টার্মিনাল এলাকায় আজ শনিবার দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় বাস, মিনিবাস মালিক সমিতির দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) ও পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত হন। এনডিসি চলমান বিরোধের বিষয়টি নিয়ে রোববার জেলা প্রশাসকের সঙ্গে বৈঠকের জন্য দুইপক্ষকে আহ্বান জানিয়েছেন।

এর আগে দুপুরে মালিক সমিতির সভাপতির চেয়ারে খেয়াল-খুশি মতো বসে পড়েন শ্রমিক লীগের সভাপতি সাইফুল করিম সাবু। তিনি চেয়ারে বসে নাটকীয় ভঙ্গিতে নানা কথা বলছিলেন। এ অবস্থা দেখেন মালিক সমিতির বর্তমান সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ। তাঁর সমর্থকরা এর প্রতিবাদ করতে শুরু করেন। অবস্থা বেগতিক দেখে সাইফুল করিম সাবু চেয়ার ছেড়ে উঠে যান। ওই মুহূর্তে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম এসব ঘটনার ছবি ধারণ করতে থাকেন। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন সাইফুল করিম সাবু। তিনি রবিউল ইসলামকে মারধর করেন। এরপর অনুগত শ্রমিকদের ডেকে রবিউলকে আরো পেটাতে বলেন। আদেশ পেয়ে রবিউলের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন আবু জাহিদ, মো. শাহজাহান, কালু, শওকত, ইব্রাহিম, ছোটবাবু, টাকবাবু, মিলনসহ বেশ কয়েকজন শ্রমিক। তারাও রবিউলকে মারধর করে। পরে সাংবাদিক রবিউল অন্যান্য শ্রমিক ও পুলিশের সহায়তায় রক্ষা পান।

এ বিষয়ে সাইফুল করিম সাবুর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মেরেছি তো। পারলে নিউজ করে দেন।’

সাবুর এই আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাতক্ষীরার সাংবাদিকরা। তারা এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি জানিয়েছেন।