সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

‘প্রমাণ ছাড়া গ্রেপ্তার হয় না, খুন করেন কীভাবে’



manna

অনলাইন ডেস্ক :

সাম্প্রতিক সময়ে মাদকবিরোধী অভিযানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে  নিহত ৫৪ জনের মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘প্রমাণ না থাকলে যদি একজন এমপিকে, আপনার সরকার দলের নেতাকে গ্রেপ্তার করতে না পারেন, তাহলে প্রমাণ ছাড়া এই ৫৪ জন মানুষকে হত্যা করার অধিকার আপনাকে কে দিয়েছে?’

আজ শনিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আন্তর্জাতিক গুম প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে ‘মায়ের ডাক’ শিরোনামে এক মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে মাহমুদুর রহমান মান্না এসব কথা বলেন।মানববন্ধনে অংশ নেন গত কয়েক বছর গুম হওয়া অর্ধশতাধিক ব্যক্তির পরিবারের সদস্যরা। তাঁরা তাঁদের স্বজনদের ফিরিয়ে দিতে সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মাদক ব্যবসার সঙ্গে কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের আওয়ামী লীগের সাংসদ আবদুর রহমান বদির বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বদির বিরুদ্ধে শুধু অভিযোগ উঠেছে কিন্তু কোনো প্রমাণ নেই। প্রমাণ না থাকলে গ্রেপ্তার করা যায় না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

অন্যদিকে, সারা দেশে মাদকবিরোধী অভিযানে দেশের বিভিন্ন জেলায় পুলিশ ও র‍্যাবের গুলিতে অনেক মানুষের মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। আর এসব মৃত্যুর ঘটনাকে মানুষ ক্রসফায়ার বললেও সরকারদলীয় নেতা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বলছেন ‘বন্দুকযুদ্ধ’। ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, ‘কোথাও ক্রসফায়ার হচ্ছে না, যা হচ্ছে তা বন্দুকযুদ্ধ।’ এরই পরিপ্রেক্ষিতে এবং ওবায়দুল কাদেরের কথার জবাবে আজ মাহমুদুর রহমান মান্না এসব কথা বলেন।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘কাল গড়াতে গড়াতে অনেক কিছুই বদলে যাবে, তখন আপনাদেরও আসামির কাঁঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে খুনি হিসেবে। বাংলাদেশ এখন একটা মৃত্যুর দ্বীপ।’ মানববন্ধনে মানবাধিকার কর্মী নূর খান লিটন বলেন, ‘প্রত্যেকটি বিষয়ে তদন্ত কমিশন, নিরপেক্ষ তদন্ত কমিশন গঠন করে, কী হয়েছে, কী হচ্ছিল এই বিষয়টা স্পষ্ট করা দরকার।’

kidnapped family

মানববন্ধনে অংশ নিয়ে গুম হওয়া অর্ধশত পরিবারের সদস্যরা তাঁদের স্বজনদের অবিলম্বে ফিরিয়ে দিতে সরকারে সংশ্লিষ্ট বিভাগের কার্যকর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মানববন্ধনে নিখোঁজ সুমনের মা বলেন, ‘সুমনের ছোট বাচ্চাটা যখন বলে, বাবা কোথায়, বাবাকে নিয়ে আসো না। বাবা কোথায়, বাবাকে নিয়ে আসো। তখন আমাদের কী হয়? আমার পরিবারের কী হয়?’

আরেক মা বলেন, ‘অনেক জায়গায়, অনেকবার আপনাদের পিছনে আমরা দৌড়াই। এখনো দৌড়াই। এখনো আশাবাদী। আমাদের সন্তানকে ফিরিয়ে দেন।’

মানববন্ধনে অংশ নেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও মানবাধিকার সংগঠনের নেতারা। তাঁরা কয়েকদিন ধরে সারা দেশে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে মানুষ হত্যার সমালোচনা করেন।

এ সময় বক্তারা বলেন, বিনা বিচারে মানুষ হত্যা দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় অন্যতম প্রতিবন্ধকতা। এই প্রথা বন্ধ না হলে বিচার বিভাগের প্রতি মানুষ আস্থাহীন হবে বলেও তাঁরা জানান।