মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

সিলেটে বেসামাল ছাত্রলীগের দুপক্ষে সংঘর্ষ নিহত ১



bsl omor murder

স্টাফ রিপোর্ট :

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ছাত্রলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন এক ছাত্রলীগ কর্মী। এ সময় আহত হয়েছেন  আরো দুই কর্মী।

সোমবার (১৬ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সিলেটের টিলাগড় এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম ওমর আহমেদ মিয়াদ (২৬)। সে সিলেটের শহরতলীর বালুচর এলাকার আকুল মিয়ার ছেলে। এ ছাড়া আহত দুইজন হলেন নাসির ও তারিক।

নিহত ওমর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হীরন মাহমুদ গ্রুপের অনুসারী বলে জানা যায়। সে লিডিং ইউনিভার্সিটির ‘ল বিভাগের ছাত্র ছিল।

নিহতের মরদেহ ও আহতদের উদ্ধার করে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে গত ১৩ সেপ্টেম্বর শিবগঞ্জে প্রতিপক্ষ গ্রুপের ছুরিকাঘাতে নিহত হন ছাত্রলীগ কর্মী জাকারিয়া মোহাম্মদ মাসুম। গত সাত বছরে সিলেটে ছাত্রলীগের আট নেতাকর্মী খুন হলেন।

শাহ পরান থানার ওসি আকতার হোসেন জানান, বিকাল সাড়ে ৩টায় সিটি কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদের কার্যালয়ের সামনে হিরন মাহমুদ নিপু গ্রুপের ছাত্রলীগ কর্মী ওমর আহমেদ মিয়াদ, নাসিমসহ আরও একজনের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা মিয়াদ ও নাসিমকে উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা মিয়াদকে মৃত ঘোষণা করেন। নাসিমকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

হামলাকারীদের ধরতে পুলিশ অভিযানে নেমেছে বলেও জানান ওসি।

এদিকে এ ঘটনার জন্য সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা ও সিটি কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ গ্রুপের অনুসারী ছাত্রলীগ কর্মীদের দায়ী করেছে নিপু গ্রুপের কর্মীরা।

এ বিষয়ে আজাদুর রহমান আজাদ বলেন, তিনি বিষয়টি শুনেছেন। তবে কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে- তা তিনি জানেন না। তিনি হাসপাতালে আহতদের সঙ্গে কথা বলে জানবেন বলে জানান।

জেলা ছাত্রলীগের নেতৃস্থানীয় এক নেতা দাবি করেন, কাউন্সিলর আজাদ গ্রুপের অনুসারী তোফায়েল নামের এক ছাত্রলীগ কর্মী এ হামলার সঙ্গে জড়িত।

এ ঘটনায় টিলাগড় এলাকায় থমথমে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুসা জানান,  সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছে। টিলাগড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।