সোমবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

সাংবাদিক মারধরের ঘটনায় শাল্লার ইউএনও আসিফ বিন ইকরামকে প্রত্যাহার



a-h-m-ashif-bin-ekram

সাংবাদিক মারধরের ঘটনায় শাল্লা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ. এইচ. এম. আসিফ বিন ইকরামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। আজ বিকেলে সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মো. জামাল উদ্দিন আহমদ তাকে প্রত্যাহার করে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে সংযুক্ত করার  আদেশ দেন।

সিলেট24 এর কাছে বিভাগীয় কমিশনার মো. জামাল উদ্দিন আহমদ এ আদেশের কথা জানান।

এর আগে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে পাথর ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৩০ লক্ষ টাকা ঘুষ নেয়ার অপরাধে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা হয়। সেই মামলা এখন শেষ পর্যায়ে আছে বলে জানান বিভাগীয় কমিশনার। মামলার সুত্র ধরে এ. এইচ. এম. আসিফ বিন ইকরামের ইনক্রিমেন্ট সহ সকল পদোন্নতি স্থগিত রয়েচে বলে জানা গেছে। বাকী জীবন তাকে বর্তমান পজিশনেই থাকতে হবে বলে নিশ্চিত করেছে বিভাগীয় কমিমনারের কার্যালয় সুত্র।

এর আগে গতকাল আসিফ বিন ইকরামকে প্রত্যাহারের দাবিতে  মানববন্ধন করেন সুনামগঞ্জের গণমাধ্যম কর্মীরা। জেলা সদরের আলফাত স্কয়ারে দুপুর ১২টায় এই মানববন্ধন শুরু হয়। এ সময় সাত দিনের মধ্যে ইউএনওকে সুনামগঞ্জ থেকে প্রত্যাহারের দাবি জানান তাঁরা। পরে একই দাবিতে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে জনপ্রশাসনমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ইউএনও আসিফ বিন ইকরামের নানা অনিয়ম-দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করায় তিনি এই জেলার সাংবাদিকদের ওপর অত্যন্ত ক্ষুব্ধ। তিনি ২৫ সেপ্টেম্বর শাল্লার এক সাংবাদিককে মারধর করেছেন। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায়ও তিনি নানা অনিয়ম-দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন।