সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

তাহিরপুরে পাটলাই নদীতে বেপরোয়া চাঁদাবাজি



 

nodi

দেশের অন্যতম স্থল শুল্ক স্টেশন বড়ছড়া-চারাগাঁও-বাগলী থেকে পাটলাই নদী দিয়ে কয়লা চুনাপাথর পরিবহনকারী নৌকার মাঝিদের মারধর করে বেপরোয়া চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়,তাহিরপুর উপজেলা প্রশাসন রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যে কয়লা চুনাপাথর পরিবহনকারী প্রতি নৌকা থেকে ২০ টাকা খাস আদায়ের শর্তে খাস আদায়ের জন্য স্থানীয় ডিহিবাটি তহশীলদারকে দায়িত্ব দেয়া হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ, ডিহিবাটি তহশীলদার বা তার অফিসের কোন লোক পাটলাই নদী থেকে খাস আদায় না করে শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আমির উদ্দিনের পুত্র সুহেল আহমদ বাবুকে দিয়ে খাস আদায় করানো হচ্ছে। সুহেল আহমদ বাবুর মনোনীত লোক রিফাত মিয়া কয়লা চুনাপাথর পরিবহনকারী প্রতি নৌকা থেকে জোড়পূর্বক ৫ থেকে ৬শ টাকা আদায় করছে। যার ফলে একদিকে কয়লা চুনাপাথর পরিবহনকারী নৌকা বড়ছড়া-চারাগাঁও-বাগলী শুল্ক স্টেশনে মালামাল পরিবহনে অনীহা প্রকাশ করছে। অপরদিকে নৌকার মাঝিদের মারধর করে বেপরোয়া চাঁদাবাজি ঘটনায় বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে।

কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর উপজেলার খৈলা গ্রামের মায়ের দোয়া পরিবহনের চালক আবু সাঈদ ও আল্লাহর দান পরিবহনের চালক তাহের আলী বলেন,‘ আমরা দেড়যুগ ধরে বড়ছড়া-চারাগাঁও থেকে পাটলাই নদী দিয়ে মালামাল পরিবহনে ২০ টাকা করে জমা দিয়ে আসছি। এবার হঠাৎ করে প্রতি নৌকা থেকে ৫শ থেকে ৬শ টাকা জোড় পূর্বক চাঁদা আদায় করছে। আমরা এতে অনীহা প্রকাশ করলে চাঁদাবাজদের হাতে মারধরসহ নানারকম হয়রানির স্বীকার হতে হয়। ’

অভিযুক্ত সুহেল আহমদ বাবুর প্রতিনিধি রিফাত মিয়ার সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি প্রতি নৌকা থেকে ৫শ থেকে ৬শ টাকা আদায়ের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,‘ আমরা প্রতি নৌকা থেকে ১শ থেকে ২শ টাকা আদায় করি। নৌকার মাঝিদের মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।
ডিহিবাটি ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা (তহসিলদার) সেলিম মিয়া বলেন,‘পাটলাই নদীতে নৌকার মাঝিদের মারধর করে বেপরোয়া চাঁদাবাজির বিষয়টি তিনি জানা গেছে। আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করা হবে।

বাগলী শুল্ক স্টেশন সমিতির সভাপতি শাজাহান খন্দকার বলেন,‘ চাঁদাবাজরা পাটলাই নদীতে যেভাবে বেপরোয়া হয়ে চাঁদাবাজি করে আসছে এতে করে কয়লা ব্যবসায়ীরা বড়ছড়া-চারাগাঁও-বাগলী শুল্ক স্টেশনে কয়লা চুনাপাথর ক্রয় করতে আসবে না। এলাকার ব্যবসা-বাণিজ্যের চরম ক্ষতি হবে।’