মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক সংস্কারে নেই উদ্যোগ



DSC01354পাহাড়ী ঢল ও প্রবল বর্ষণে সুনামগঞ্জ শহরের নবীনগর-হালুয়ারঘাট সড়ক ভাঙ্গনের প্রায় ১ মাস পরেও সড়ক সংস্কারে সরকারীভাবে কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি।
ধারারগাঁয়ের পয়েন্ট থেকে সড়ক ভাঙ্গন এলাকা পর্যন্ত বর্তমানে ৪টি কার্লভার্ট রয়েছে। ধারারগাঁও পয়েন্টের পাশের একটি কার্লভার্টের মুখে মার্কেট নির্মাণ করা হয়েছে। এতে ওই কালভার্ট দিয়ে পানি নিস্কাশন বাধাগ্রস্ত হয়ে পড়ে। সড়কের যে জায়গায় ভাঙন তৈরি হয়েছে সেখানেও ছিল একটি কালভার্ট।  কালভার্টের পাশ্ববর্তী জমির মালিক চাষাবাদ করার জন্য এই কালভার্টের একটি মুখ বন্ধ করে দেয় ফলে ওই কালভার্ট দিয়ে পানি অপসারিত হচ্ছিল না। আরব আলীর বাড়ির সামনে আরও একটি কালভার্ট রয়েছে এবং এটির মুখও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এভাবে কালভার্টের মুখ বন্ধ করে ফেলায় রাস্তার উপর পানির প্রচ- চাপ তৈরি হয় এবং এই চাপেই রাস্তা ভেঙে পড়েছে।

ধারারগাঁয়ের বাসিন্দা আব্দুল ওয়াহাব বলেন, ‘সরকারীভাবে ভাঙ্গন    মেরামতের জন্য কোনো উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না।’
একই এলাকার বাসিন্দা মো. আব্দুল মন্নান বলেন, ‘বন্যার শেষে প্রায় ১ মাস চলছে ভাঙ্গন এলাকায় সড়ক নির্মাণ না করায় প্রতিদিন লাখ লাখ মানুষ দুর্ভোগে পড়েছেন। শহর থেকে গাড়ি করে ভাঙ্গনে এসে ভাড়া দিয়ে হেঁটে ভাঙ্গন পার হয়ে আবারও গাড়ি ভাড়া দিয়ে যেতে হয় হালুয়ারঘাটে। এভাবে হালুয়ারঘাট থেকে শহরে আসা যাত্রীদের বেলায় একই ভোগান্তির শিকার হতে হয় এবং অতিরিক্ত ভাড়া দিতে হয় সকলের। এতে খরচের পরিমাণ দ্বিগুণ বেড়ে যায়।’

ধারারগাঁওয়ের শাহাব উদ্দিন বলেন, ‘প্রতিদিন লাখ লাখ মানুষ এই সড়ক দিয়ে শহরে আসেন। কিন্তু এই সড়কের কাজ নিয়ে বাণিজ্য করেন ঠিকাদার ও অফিসের কর্মকর্তারা। কয়দিন পর পর দুই নম্বরি করে দুই একটা ইট লাগান পরে আর খবর নেই।’

এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী ইকবাল আহমেদ বলেন, ‘ভাঙ্গন এলাকায় এ বছর শুকনা মৌসুমে একটু নিচু করে সড়ক নির্মাণ করে দেয়া হবে। এই সড়ক নির্মাণের জন্য আমরা প্রস্তাব পাঠাবো। বরাদ্দ আসলে কাজ হবে।’