বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

ক্ষমা প্রার্থনা করে বক্তব্য প্রত্যাহার করতে সমাজ কল্যাণমন্ত্রীর প্রতি বি এফ ইউ জে’র আহবান



bulbul
সিলেট টোয়েন্টিফোর ডেস্ক:
সমাজকল্যানমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী যে ভাষায় সাংবাদিকদের আক্রমন করেছেন তাঁর কঠোর নিন্দা জানিয়েছেন দেশের সাংবাদিক সমাজ ।
বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল ও মহাসচিব আবদুল জলিল ভূঁইয়া এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আলতাফ মাহমুদ এবং কুদ্দুস আফ্রাদ সহ চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, বগুড়া, দিনাজপুর, যশোর, নারায়ণগঞ্জ , ময়মনসিংহ , নারায়নগঞ্জ এবং কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে ক্ষমা প্রার্থনা করে বক্তব্য প্রত্যাহারের জন্য সৈয়দ মহসিন আলী প্রতি আহবান জানান।
সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, সা¤প্রতিক সময়ে সৈয়দ মহসিন আলী ধারাবাহিকভাবে সাংবাদিক সমাজ ও গণমাধ্যম প্রতি উস্কানী মূলক বক্তব্য রেখেই চলেছেন। সৈয়দ মহসিন আলীর উচ্চারিত শব্দাবলী, বক্তব্য এবং তাঁর দেহের ভাষায় যার প্রকাশ ঘটেছে তা তার নিজস্ব শিক্ষা, রূচী, রাজনীতি ও পারিবারিক সংস্কৃতিকেই প্রশ্নবিদ্ধ করে।
সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, একজন মন্ত্রীর নীচু স্তরের এই ধরনের মানসিকতা এবং তাঁর প্রকাশ গোটা সরকার ও মন্ত্রীসভার মর্যাদাকেই হেয় করে। এই মানের কোন মন্ত্রী যে কোনভাবেই সরকারের বা মন্ত্রীসভার মর্যাদা বৃদ্ধি করে না তা নিশ্চয়ই সরকারের শীর্ষ মহলও অনুধাবন করবেন। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ সরকারের মর্যাদা রক্ষার স্বার্থেই তাঁর ব্যাপারে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহনের আহবান জানান।
সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, বিস্ময়ের বিষয় হচ্ছে সৈয়দ মহসিন আলী তাঁর বক্তব্যের সময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীই যে তাঁকে এবং আপর একমন্ত্রীকে ’চালিয়ে যেতে বলেছেন” এ কথা বলার মধ্য দিয়ে তাঁর সাংবাদিক ও গণমাধ্যম বিরোধী অরূচীকর ও অশালীন আচরনের সঙ্গে প্রধামন্ত্রীর নামটিও জড়িয়ে ফেলছেন। এটি আমাদের সবার জন্যই ব্রিবতকর। আমরা নিশ্চিত, প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সরকার সাংবাদিকদের কল্যাণে যখন নানা উদ্যোগ নিচ্ছেন এবং তাঁর বাস্তবায়ন করছেন, তখন তাঁর মন্ত্রীসভার একজন সদস্যের আশালীন মন্তব্য ও অশোভন বক্তব্যের কারনে তিনি সেই সকল শুভ উদ্যোগকে প্রশ্নবিদ্ধ হতে দেবেন না। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ সৈয়দ মহসিন আলী যেন সাংবাদিকদের কাছে দ্রুত ক্ষমা প্রার্থনা করে তাঁর বক্তব্য প্রত্যাহার করেন সে ব্যাপারে উদ্যোগ নিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানান।
সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন: সা¤প্রতিক সময়ে সরকারের কোন কোন মন্ত্রী, এমপি বা নেতার কথাবার্তা ও কাজে এমনটি ধারণা করার সুযোগ রয়েছে যে, তাঁরা সরকারের সঙ্গে গণমাধ্যমের সম্পর্কের অবনতি ঘটিয়ে কোন বিশেষ উদ্দেশ্য সাধন করতে চান কি না।
নেতৃবৃন্দ বলেন: কোন সংবাদ মাধ্যমে কোন সংবাদ প্রকাশের কারণে কেউ ক্ষুদ্ধ হলে তা’ নিরসনের বহু পথ খোলা আছে , সেই পথে না গিয়ে সৈয়দ মহসিন আলী যে ভাষায় সাংবাদিকদের ওপর চড়াও হয়েছেন তা সত্যিই উদ্বেগের বিষয়।
সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন কুরূচীকর মানসিকতার মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী তাঁর অশালীন কর্মকান্ডের সাথে সিলেটবাসীকেও স¤পৃক্ত করার কথা বলেছেন। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন: আমরা নিশ্চিত পূণ্যভূমি সিলেটের বিদগ্ধ নাগরিক সমাজ এবং সাধারণ মানুষ এই মন্ত্রীর উস্কানীমূলক আহবান প্রত্যাখ্যান করে সিলেটের এবং সারাদেশের সাংবাদিক সমাজের পক্ষেই দাঁড়াবেন।
সৈয়দ মহসিন আলী-কে ইতহাস থেকে শিক্ষা নেয়ার আহবান জানিয়ে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন: প্রবল ক্ষমতাধরদের রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করেই এ দেশের সাংবাদিক সমাজ তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালন করেন। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ সৈয়দ মহসিন আলী ক তাঁর কথা, আচরণ, শব্দপ্রয়োগ ও ব্যবহারে সংযত হওয়ার পরামর্শ দেন।
সাংবাদিকসমাজ এবং গণমাধ্যম যাতে তাঁদের মর্যাদা অক্ষুন্ন রেখে তাঁদের পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে পারেন তেমন পরিবেশ বজায় রাখতে সংশি¬ষ্ট সকলের প্রতি আহবান জানান সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতিতে অন্যান্যদের মধ্যে সই করেন: চট্টগ্রাম, রাজশাহী, বগুড়া, খুলনা, যশোর, দিনাজপুর, ময়মনসিংহ, নারায়নগঞ্জ ও কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গণ।