রবিবার, ৫ এপ্রিল ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২২ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

সুনামগঞ্জে কোয়ারেন্টাইন আছেন ১০ জন



সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জে করোনাভাইারাস প্রতিরোধে বিদেশ ফেরত ১০জন ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় ছয়জন, দোয়ারাবাজার উপজেলায় তিনজন এবং সদর উপজেলায় একজন। এরা সম্প্রতি দেশে এসেছেন।
সোমবার দুপুরে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে করোনো বিষয়ে এক প্রেস ব্রিফিং হয়। পৌর শহরের ইপিআই ভবনে অনুষ্ঠিত এই ব্রিফিংয়ে জেলা সির্ভিল সার্জন মো. শামস উদ্দিন জানান, যারাই বিদেশ থেকে দেশে এসেছেন তারা স্বাস্থ্যকর্মীদের নজরে আছেন। তাদের প্রত্যেককে ১৩ দিন করে নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। একই সঙ্গে করোনা বিষয়ে গঠিত উপজেলা কমিটি ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। যাতে কেউ বিদেশ থেকে এলে সঙ্গে সঙ্গে সেটি স্বাস্থ্যবিভাগের কর্মীদের জানানো হয়।
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা চৌধুরী জালাল উদ্দিন মুর্শেদ জানান, তাঁর উপজেলায় কোয়ারেন্টিনে আছেন ছয়জন। এর মধ্যে একজনকে সোমবার আটক করেছেন তারা। ওই ব্যক্তির বাড়ি কুমিল্লা জেলায়। তিনি দক্ষিণ কোরিয়া থেকে গত ৮ মার্চ দেশে এসেছেন। সোমবার তিনি সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় শ্বশুর বাড়ি বেড়াতে এসেছিলেন। খবর পেয়ে তারা তাকে আটক করা হয়। পরে বিষয়টি উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশকে জানানো হয়।
সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন মো. শামস উদ্দিন বলেন, উপজেলা পর্যায় থেকেই কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিকে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। কেউ ব্যতিক্রম করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর মধ্যে কারো মধ্যে করোনার কোনো লক্ষণ পেলে সেটি সঙ্গে সঙ্গে অবহিত করতে বলা হয়েছে।
প্রেস বিফিংয়ে উপস্থিত থাকা সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেন, বিষয়টি নিয়ে কোনো অবহেলার সুযোগ নেই। আমাদের সবাইকে সচেতন ও সর্তক হতে হবে। জেলার করোনা সম্পর্কিত হালনাগাদ তথ্য প্রতিদিন সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের জানানোর জন্য সিভিল সার্জনকে নির্দেশ দেন তিনি।