শনিবার, ৬ জুন ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

সিরিজ নিশ্চিতের মিশনে বাংলাদেশ



স্পোর্টস ডেস্ক:

তামিম ইকবালকে নিয়ে অনুশীলনে বেশ খানিকটা সময় ব্যয় করতে দেখা গেল জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জিকে। দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে স্টান্স আর পায়ের কাজ নিয়ে পরামর্শ দিলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে। তামিম ইকবাল নিজের ব্যাটিংয়ের ধরন নিয়ে বেশ চাপের মুখেই আছেন। তাঁর মন্থর ব্যাটিং দলের ওপর চাপ বাড়িয়ে দেয়, এমন সমালোচনাও হচ্ছে। তবে তামিম চাপে থাকলেও বাংলাদেশ দল আছে ফুরফুরে মেজাজে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ইতিহাসগড়া জয়ের পর আজ দ্বিতীয় ওয়ানডে জিতে সিরিজ জয় নিশ্চিত করে নিতে চায় মাশরাফির দল।

গেল রোববার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়েকে ১৬৯ রানে হারায় বাংলাদেশ। এটাই ইতিহাসে টাইগারদের সবচেয়ে বড় জয়। তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয়টি আজ একই ভেন্যুতে বেলা ১টায় শুরু হবে।

প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ তিন বিভাগেই ছিল সপ্রতিভ। ব্যাটিংয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সর্বোচ্চ রানের (৩২১) রেকর্ড গড়ার পর বোলিংয়ে সফরকারীদের ধসিয়ে দেন সাইফ-মাশরাফিরা। ফিল্ডিংও ছিল প্রায় নিখুঁত। কিন্তু ছোট ছোট অস্বস্তিগুলো তবু ছিলই। এই যেমন তামিম ইকবালের ‘প্রাগৈতিহাসিক যুগের’ ব্যাটিং। ৪৩ বলে এই দেশসেরা ওপেনার করেন মাত্র ২৪ রান। শুধু এই এক ম্যাচই বা কেন, সর্বশেষ ১২ ম্যাচে তামিমের রান মাত্র ২৩.৩৩ গড়ে ২৮০। আর স্ট্রাইকরেট? মাত্র ৬৭.৬৯!

গেল বেশ কিছুদিন ধরেই তাই এই বাঁহাতির ব্যাটিংয়ের ধরন নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে ক্রীড়ামোদীদের মধ্যে। তিনি এক প্রান্তে বল নষ্ট করছেন, আরেক প্রান্তে চাপ তৈরি হচ্ছে। তামিমকে তাই নিজের ব্যাটিংয়ের আগ্রাসী মনোভাব নিয়ে আসার বিকল্প দেখছেন না বিশেষজ্ঞরা। আজকের ম্যাচে তাই তামিম কি করেন, সেদিকে চোখ থাকবে অনেকের।

কিছুদিন আগে আলোচনা হচ্ছিল, টিম ম্যানেজমেন্ট তামিমকে ‘ধরে খেলতে’ বলেছে। তবে সেই গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি, ‘তামিম জানে তার কি করা দরকার। এটা করে দিলে (ভূমিকা ঠিক করা) উলটো ক্ষতির কারণ। আমাদের কথা হয়েছে। আমরা অনুভব করছি তার আরও দুটো বাউন্ডারি বেশি মারা উচিত। কোন অ্যাপ্রোচ নিতে হবে সেটাও সেই বুঝবে। কেউ তামিমের হয়ে ব্যাট করবে না। তাকেই তার খেলাটা খেলতে হবে। এটা দ্রুত বা ধীর খেলারও ব্যাপার না। আমরা জানি একটা প্লাটফর্মের জন্য তাকে কতো দরকার দলে। আগে সে এটা করেছেও। আমরা জানি সে কি করতে পারে। গত বছর বিপিএলের ফাইনালে আমরা তাকে বড় সেঞ্চুরি করতে দেখেছি।’

আজকের ম্যাচে চোখ থাকবে মুশফিকুর রহিমের দিকেও। এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান দারুণ এক অর্জনের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন। আজ যদি বাংলাদেশ জিতে যায়, তবে দেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডে জয়ের সেঞ্চুরির স্বাদ পাবেন ‘মুশি’। ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডেতে ৯৯ জয় নিয়ে শতক ছোঁয়ার অপেক্ষায় এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। কাল ঐচ্ছিক অনুশীলনে এসে বিষয়টি জানতে পেরে বেশ উচ্ছ্বসিত মুশফিকুর রহিম, ‘লম্বা সময় বাংলাদেশের হয়ে খেলতে পেরেছি বলেই ১০০ জয় হতে যাচ্ছে। মাশরাফি ভাই, সাকিব-তামিমরাও অনেক বছর ধরে খেলছে। আমি সৌভাগ্যবান যে সব ঠিক থাকলে সবার আগে ১০০ জয় আমার হচ্ছে।’ শততম জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নামা ম্যাচে মুশফিকের ব্যাটও নিশ্চয়ই ভালো কিছু করতে চাইবে।

ফুরফুরে থাকা বাংলাদেশ যখন ব্যক্তিগত ভালো-মন্দের হিসেব কষছে, জিম্বাবুয়ে তখন ‘ডু অর ডাই’য়ের ভাবনায়। সিরিজে টিকে থাকলে হলে আজকের ম্যাচে তাঁদের জয়ের বিকল্প নেই। বাংলাদেশের বিপক্ষে টানান ১৪ ম্যাচে হারা আফ্রিকার দলটি তাই মরিয়া। তাঁদের ভাবনায় ইনিংস বড় করা।

কাল সোমবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলনে গিয়ে জিম্বাবুয়ের অলরাউন্ডার শন উইলিয়ামসন বলছিলেন, ‘আমি মনে করি, সমাধানটা সহজ। বিষয়টা হলো মাঠে নিজেদের খেলাটা খেলা এবং বোর্ডে রান জমা করা। আমার মতে, আমাদের ব্যাটসম্যানরা উইকেটে থিতু হতে পারছে না। অতীতে দেখবেন আমাদের ব্যাটসম্যানরা ৫০-৬০ রান করে আউট হয়ে গেছেন। এটা খুব বড় একটা বিষয়। আমি মনে করি, এই জায়গা থেকে বের হয়ে বেশি বেশি সেঞ্চুরি করাটা খুবই জরুরি।’