বৃহস্পতিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

বড়লেখায় ভার্চুয়াল আদালতে জামিন পেলেন ৪ আসামী



বড়লেখা (মৌলভীবাজারে) প্রতিনিধি:

মৌলভীবাজারের বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রথমবারের মতো ভিডিও কনফারেন্সে (ভার্চুয়াল) ৪টি মামলার জামিন শুনানী অনুষ্ঠিত হয়। বৃহস্পতিবার (১৪ মে) দুপুরে শুনানী শেষে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হরিদাস কুমার পৃথক চারটি মামলার ৪ আসামীর জামিন মঞ্জুর করেছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকার অন্যান্য সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের মতো গত ২৬ মার্চ সবধরনের আদালতেও সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে। এতে বিভিন্ন মামলায় কারাবরণকারী আসামীদের জামিন শুনানী বন্ধ থাকায় তাদের কারামুক্তিতে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। কারাবন্দী বিচারপ্রার্থীদের দুর্ভোগের বিষয় বিবেচনা করে মাহামান্য সুপ্রীম কোর্ট বিশেষ কিছু মামলার জামিন শুনানীর জন্য ভার্চুয়াল কোর্টের অনুমতি প্রদান করেন। এর অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন শুনানীর জন্য সংশ্লিষ্ট আইনজীবিরা ৫টি মামলা উপস্থাপন করেন। এরমধ্যে ভিডিও কনফারেন্সে পৃথক ৪টি মামলার জামিন শুনানী অনুষ্ঠিত হয়। ভার্চুয়াল আদালতে জামিন শুনানীতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট দীপক চন্দ্র দাস, অ্যাডভোকেট ইয়াছিন আলী, অ্যাডভোকেট শৈলেশ চন্দ্র রায়, অ্যাডভোকেট সুব্রত কুমার দত্ত প্রমুখ। শুনানী শেষে বিজ্ঞ আদালত পৃথক চারটি মামলার ৪ আসামীর জামিন মঞ্জুর করেছেন। বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র আইনজীবি ইয়াছিন আলী জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে প্রায় ২ মাস ধরে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় বিচারপ্রার্থীরা মারাত্মক দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। বিশেষ করে জামিন শুনানী করতে না পারায় জামিনযোগ্য মামলায় অনেকে দীর্ঘদিন ধরে কারাভোগ করছেন। সরকার ও উচ্চ আদালত সম্প্রতি ভার্চুয়াল আদালতে জামিন শুনানীর ব্যবস্থা করায় অনেকের দুর্ভোগ লাঘব হচ্ছে। সরকার ও উচ্চ আদালতের ভার্চুয়াল আদালত চালুর এ সিদ্ধান্তে আইনজীবিরাও সন্তুষ্ট।