শনিবার, ৩০ মে ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

এক ছবিতে “কত কথা, কত স্মৃতি”



সুপন রায়ঃ

১৩ বছর আগের এক দুপুর! সুনামগনজের দিরাই উপজেলার কালনী নদীর পাশে শান্ত এক গ্রাম ধল! সেই গ্রামে জন্ম নিয়েছিলেন, এক মেধাবী সুর সাধক! তাঁর নাম শাহ আব্দুল করিম!

তাঁর আছে সমৃদ্ধ গানের এক বিপুল ভান্ডার ! কোনটা রেখে কোনটার কথা বলি! যে গানের জন্য আমার অন্তরে তিনি দাগ কাটেন, তার মুখটি হল এরকম- ‘গ্রামের নওজোয়ান হিন্দু- মুসলমান, বাউলা গান আর মুর্শিদী গাইতাম আমরা, আগে কী সুন্দর, দিন কাটাইতাম’ ‘

আজ থেকে ১৩ বছর আগে, ২০০৮ সালে আমার উপর হঠাৎ দায়িত্ব পড়েছিল, Close up 1 পরিচালনার ! আমি গানের লোক নই! অপরাধ ও অনুসন্ধান আমার পছন্দ ও রুচি রুজির ক্ষেত্র ! ২০০৭ সালে হঠাৎ এক সকালে এনটিভি-তে আগুন লাগে! পুরে ছাঁই হয় সব! ওই ভবনটি থেকে নামতে গিয়ে জীবনও হারান ক’জন!

ঘষে- মেজে- কালি হয়ে যাওয়া এনটিভি গড়ে তোলার সংগ্রামে নিজেকে বিলিয়ে দিই! জেল থেকে তৎকালীন এমডি, হিসাব বিভাগের জিএম জিন্নাতের মাধ্যমে বার্তা পাঠান, close up 1 পরিচালনা করতে হবে! সমস্ত জীবনে চ্যালেনজ নিতে কখনো পিছপা হইনি, এবারও হইনি, দায়িতব নেবার আগে থেকেই কর্মীদের বেতন হওয়া থেকে শুরু করে, জেলখানায় গিয়ে বৈঠক করে সিদ্ধানত নিয়ে,মালিকদের কথামত দায়িতব পালন করতে থাকি! অথচ, আমি তখন বিশেষ প্রতিনিধি মাত্র ! অথচ,ইডি’র মতোন পদে তখনও কেউ কর্মরত ছিলেন! আমাকে কেন তারা সেদিন ডেকে নিলেন, সে রহস্য তারাই ভাল বলতে পারবেন! আমি হলাম, কলুর বলদ! বলদ কত প্রকার ও কী রকম তার কর্মকান্ড, তার প্রকৃষ্ট উদাহরন এই আমি! গাঁধার মতো খাঁটি, আর বিনিময়ে ক’জন কলিগের CO-ordinated ষড়যন্ত্রের নির্মম ঈর্ষার শিকার হই!

Close up 1 ছিল আমার জন্য এক বিশাল শিক্ষা সফর ! বাংলাদেশে কোন জেলা সঙগীতে কতখানি সমৃদ্ধ, কত ভংগুর, অবকাঠামো কেমন, সে সম্পর্কে অনেক জানা ও বোঝার সুযোগ হল! বিপদের সময় এনটিভির মালিক কতৃপক্ষের পাশে দাঁড়িয়ে, চেষ্টা তদবির করে, নানা রকম সমঝোতা করে, জীবনে যা করিনি, নিজেকে ছোট করে,এক কাপ চাও খরচ না করে, জেলখানা থেকে নিজের গাডি তে করে, বেইলি রোডে নিজের ফ্লাটে নিয়ে, মুক্ত জীবনে স্বামী- স্ত্রী’র মিলন ঘটানোর সুযোগ করে দিই!

আবেগে, উচ্ছ্বাসে যেই মালিক সেদিন আমার হাঁটুতে হাত রেখে, আরেক জনের বেঈমানীর গল্প শুনিয়ে, আমাকে ধর্মের ভাই ডেকে,প্রতিঁজ্ঞা করেছিলেন বিশ্বাসের মর্যাদা রাখার, সেই মালিকের জন্যই মাত্র কয় মাস পর, চেয়ারম্যানকে জানিয়ে এনটিভি ছেডে যেতে বাধ্য হই! সবই কপাল! কপালের লিখন না যায় খন্ডন !

ভালবাসার প্রতিদান এমনি করেই হয়তো ফেরত আসে ! পরে যমুনা টেলিভিশনেও তেমনি ভালবাসা ফেরত পেয়েছি ! তবে,এবার আর মালিক নয়, প্রিয় সহকর্মীদের অনেকে ভালবাসা ভরা ফুলের কাঁটা বিছিয়ে রেখেছিল ! যাদের ডেকে -ডেকে,সংকট বুঝে, যোগ্য সহানে বসিয়েছিলাম, তারাই সুন্দর বাঁশ মিশ্রিত ভালবাসা ফেরত দিয়েছে ! চমৎকার ছিল অভিনয় দক্ষতা ! কপাল !

কত কথা, কত স্মৃতি আজ ঝাঁপি খুলে মেলে ধরল, এই একটি ছবি ! আমার কাছে এ কেবল ছবি নয়, দলিল! ছবির দু’জন মানুষ শাহ আব্দুল করিম ও আবিদ এখন অতীত ! ওই আকাশে বসে তারা আপন মনে গান ধরেন হয়তো !

মনে পডছে, Close up 1 এ অডিশন এপিসোড গুলোতে, আমি জেলার সমৃদ্ধ সঙ্গীত ইতিহাস কে লিংক করিয়ে দিতে কত ধরনের নিরীক্ষা, কত পাগলামী করেছিলাম, আবিদ ও পুতুল তা নীরবে হজম করে গেছে ! এসাধারন দুই তরুন প্রান ! মুখসহ করায় দারুন দক্ষ! পাগলামীর প্রমান এই ছবি!

Close up 1 এর আনুষ্ঠানিক শুরু হবার আগে শিল্পী, সুরকার, কুশলীদের নিয়ে তৎকালীন হোটেল শেরাটনের একটি অনুষটান করে Unilever ! Zero episode on air হবার পর সুরকার সুজেয় শ্যাম, আমার মুখে চুমু খেয়ে নগদ ৫ শো টাকার একটি নোট তুলে দেন ! কিচছু ভুলিনি !

শাহ আব্দুল করিম আজ আর বেঁচে নেই ! নেই প্রিয় আবিদও! রয়ে গেল কেবল ছবি খানা! সকালে লন্ডন থেকে সহকর্মী শাকির হঠাৎ ইনবক্সে একটি ছবি দেন ! তারপর কোথা থেকে ২ ঘন্টা পার হল টেরই পেলাম না! কাজের ক্ষতি হলেও মুহুরতে ফিরে গেলাম ১৩ বছর আগের জীবনে ! সংগ্রাম মুখর জীবন ! Career ধবংস করে দেবার নিষটুর বছর !

পুতুল সেদিন শাহ আব্দুল করিম’কে তাঁর লেখা – ‘ আমি কুল হারা কলংকিনী, আমারে কেউ ছুঁইও না গো সজনী ‘ গানটি গেয়ে শোনানোর সুযোগ পেয়েছিল! সেই সুত্রে পরিচালক হিসেবে পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ পাই আমিও! অমুল্য !

ছবি : শাকির  হোসাইন

লেখকঃ স্বনামধন্য টেলিভিশন সাংবাদিক Supan Roy